Principal Message

সুদীপ কুমার মন্ডল, অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত)

শিক্ষাই উন্নতির চাবিকাঠি। জাতীয় জীবনের অগ্রগতির মূলমন্ত্র হল শিক্ষা । ঘুমন্ত সত্তাটিকে জাগিয়ে তেলার একমাত্র কার্যকর মাধ্যম শিক্ষা । শিশু-কিশোরের, তরুণদের ঘুমন্ত সত্তাটিকে কে জাগিয়ে তুলবে ? জাগিয়ে তোলার দায়িত্ব মা-বাবার, বড় ভাই-বোনের, আত্মীয়-স্বজনের শিক্ষক শিক্ষিকার, সমাজকর্মীর, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এবং সর্বোপরি রাষ্ট্রের । এটি যদি বাস্তবে প্রতিফলিত হয় তাহলে শিক্ষার ফল সোনালি সূর্যের মতো আমাদের জীবনকে সুখ শান্তিতে ভরে দেবে । আসুন আমরা ছাত্র-শিক্ষক, অভিভাবক এবং সমাজের সুধিজন সকলে মিলে ভাবি এবং কাজ করি ।
‘সকলের তরে সকলে আমরা
প্রত্যেকে আমরা পরের তরে ।’
পরিবেশের কথা ভাবতে হবে । আমাদের সন্তানের কথা এবং দেশের কথা ভাবার এখনই সময়, আর দেরি নয় । এখন সমৃদ্ধ ভবিষ্যতের কথা ভেবেই বর্তমান শিক্ষার কথা গুরুত্বের সাথে গ্রহণ করতে হবে  । শিক্ষার আলো প্রতিটি ঘরে পৌঁছে দিতেই হবে । এই আলো প্রবাহিত হবে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে। আর এই শিক্ষার মধ্য দিয়েই গঠিত হবে একটা সুখী, সুন্দর, সমৃদ্ধিশালী রাষ্ট্র ও সমাজ। যশ, খ্যাতি, সুনাম আর সম্মান নিয়ে আমরা দাঁড়াবো পৃথিবীর কাছে মাথা উঁচু করে ।
বনফুল আদিবাসী গ্রীনহার্ট কলেজ সেই মহান উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে ২০০৪ সনে প্রতিষ্ঠিত হয় । সূচনালগ্ন থেকেই এ কলেজটি শিক্ষার এই মহান পবিত্র দায়িত্ব নিয়ে পথচলা শুরু করেছে । এখানে সমতলের কোমলমতি শিক্ষার্থী ও আদিবাসী শিক্ষার্থীরা শান্তি, সম্প্রীতি ও অত্যন্ত সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে পড়াশুনা করছে। মানুষের মূল্যবোধকে, নৈতিকতাকে তথা মানুষের শ্রেষ্ঠত্বকে উর্ধ্বে তুলে ধরে দ্ব্যর্থহীন ঘোষণা-
‘সবার উপরে মানুষ সত্য তাহার উপরে নাই ।’
এ শিক্ষাদর্শনকে সামনে রেখে, যুগের চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে একটি আধুনিক বিজ্ঞান মনষ্ক, দেশপ্রেমিক ও অসাম্প্রদায়িক প্রজন্ম বিনির্মাণের লক্ষ্যে বনফুল আদিবাসী গ্রীনহার্ট কলেজ নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে । স্রষ্টার সব সৃষ্টির মধ্যে মানুষই কেবল সচেতনতায়, বুদ্ধিমত্তায় স্বতন্ত্র ও শ্রেষ্ঠ । তবে এ শ্রেষ্ঠত্বকে বজায় রাখার জন্য আজকের শিক্ষার্থীদেরকে অবশ্যই একাডেমিক শিক্ষার পাশাপাশি বিজ্ঞান, কারিগরি, ই-বিজনেস, তথ্য প্রযুক্তি, মূল্যবোধ ও নৈতিক শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে তার পাশাপাশি বিবেকবান ও মানবতাবাদী হতে হবে । এখানে নির্দ্ধিধায় উল্লেখের অপেক্ষা রাখে যে, এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষা কার্যক্রমের সাথে সংশ্লিষ্ট শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভাবক, কর্মকর্তা, কর্মচারী সর্বোপরি গভর্নিং বডির সম্মানিত সদস্য-সদস্যাবৃন্দ নিজ নিজ অবস্থান থেকে মহান দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন নিরলসভাবে ।
বনফুল আদিবাসী ফাউন্ডেশন ট্রাস্ট তথা শিক্ষা ট্রাস্ট বাংলাদেশের তিন পার্বত্য জেলার বিচক্ষণ দূরদর্শী দেশপ্রেমিক শিক্ষাব্রতী মানুষের বহুযুগের লালিত স্বপ্নের বাস্তবায়নে ২০০৪ সনে বনফুল আদিবাসী গ্রীনহার্ট কলেজটি প্রতিষ্ঠা করেন । প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে কলেজ গভর্নিং বডির মাননীয় সভাপতি, মহান ব্যক্তিত্বের অধিকারী ভেন. প্রজ্ঞানন্দ মহাথেরো মহোদয়ের অবিসংবাদিত নেতৃত্বে কলেজটি দিন দিন একটি পরিপূর্ণ ও বিকশিত প্রতিষ্ঠানের রূপ পরিগ্রহ করতে চলেছে ।
আমাদের শিক্ষা কার্যক্রম তথা পাঠ্যসূচি সাজানো হয়েছে দেশীয় শিক্ষার ও জাতীয় শিক্ষা নীতির আলোকে । বাংলা ও ইংরেজি উভয় মাধ্যমে জাতীয় শিক্ষা ক্যারিকুলাম অনুসৃত হয় । প্লে গ্রুপ থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষা কার্যক্রম চলমান।  বিজ্ঞান, ব্যবসায় শিক্ষাসহ মানবিক বিভাগে সুশৃঙ্খল পরিবেশ এবং অত্যন্ত আন্তরিকতার সাথে শ্রেণিকক্ষে শিক্ষার্থীদের নিবিড় পাঠদান করা হয়। প্রভাতি ও দিবা শাখার সকল ধর্মের, সকল বর্ণের বাংলাদেশের প্রায় সকল জেলার ১১৪ জন শিক্ষক শিক্ষিকার সঞ্চালনায় প্রতিটি কর্মদিবসে  প্রায় দুই সহস্রাধিক শিক্ষার্থীর মিলন মেলা যেন বার বার সেই সমৃদ্ধ ধর্মনিরপেক্ষ আগামীর হাতছানি দিচ্ছে ।
সময়ের পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে পাল্টে যাচ্ছে সভ্যতার রূপ, পাল্টে যাচ্ছে তার পারিপার্শ্বিক জীবন ব্যবস্থা। তাই আজকের যুগ প্রতিযোগিতার যুগে আমাদের সন্তানরা প্রতিযোগী সকল শুভ প্রতিযোগিতায় মেধাবিকাশ, মননশীলতা ও সৃজনশীলতা অর্জনের প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে তারা দেশের এক একজন কৃতি সন্তান হিসেবে গড়ে উঠবে । এ লক্ষ্য অর্জনে শিক্ষক-শিক্ষিকা, শিক্ষার্থী, অভিভাবকসহ সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টা যখন সমন্বিত কর্মকুশলতায় পরিণত রূপ পরিগ্রহ করবে তখনই সাফল্য সহজেই আমাদের দ্বার প্রান্তে এসে ধরা দেবে ।

এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সকল শ্রেণির মানুষের মঙ্গল সাধন করবে বলে আমার দৃঢ় বিশ্বাস। আমাদের শিক্ষার্থীদের, আমাদের সন্তানদের স্বপ্ন পূরণের সেই সোনালি সাফল্যের জন্য সম্মানিত শিক্ষক-শিক্ষিকা, অভিভাবক-অভিভাবিকাসহ সংশ্লিষ্ট সকলের সমর্থন ও সহযোগিতা কামনা করি ।

(সুদীপ কুমার মন্ডল)
অধ্যক্ষ